২৭ অক্টোবর ২০২০ ০৩:৫৯ পূর্বাহ্ন     |    ই-পেপার     |     English
২৭ অক্টোবর ২০২০   |  ই-পেপার   |   English
অভিযুক্তদের দাবি সবই সাজানো নাটক
জৈন্তাপুরে প্রাণনাশের হুমকিতে বাড়ি ছাড়লেন প্রবাসীর পরিবার
জৈন্তাপুরে প্রাণনাশের হুমকিতে বাড়ি ছাড়লেন প্রবাসীর পরিবার

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি

জুন ২৬, ২০২০ ০৬:৩২ পিএম
ট্রাকে করে মালামাল সরাচ্ছে প্রবাসী পরিবার

জৈন্তাপুরে স্যোসাল মিডিয়ায় শেয়ার করা একটি লেখা নিয়ে প্রবাসী পরিবারকে গ্রাম ছাড়া করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তারা প্রাণনাশের আতংকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। যদিও অভিযুক্তরা বলছেন এগুলো সাজানো নাটক। স্থানীয় পুলিশ বলছে বিষয়টি তাদের জানা নেই।

সম্প্রতি সেন্ট্রোল জৈন্তা উচ্চ বিদ্যালয়ের ফেইসবুক পেইজে ও কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে একটি লেখা প্রকাশিত হয়।এটি নিয়ে  সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার সেনগ্রামের একটি প্রভাবশালী পরিবারের দ্বারা লন্ডন প্রবাসী ডাক্তার আবু তাহেরের পরিবার লাঞ্চিত  হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন তিনি নিজে। প্রাণনাশের আশংকার বৃদ্ধ পিতা-মাতা ও ছোট বোনকে নিয়ে নিজ বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বলে তিনি জানান। যদিও  জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শ্যামল বণিক এ ব্যাপারে অবগত নন বলে জানিয়েছেন। তবে অভিযুক্তরা এ ঘটনাকে  সাজানো নাটক বলে দাবি করেছেন।

লন্ডন প্রবাসী ডাক্তার আবু তাহের  এ প্রতিবেদকে জানান, সম্প্রতি সিনিয়র সাংবাদিক এহসানুল হক জসিমের লেখা “একটি স্কুলের নবযাত্রা, উত্থানকাল ও একজন হেডস্যার”নামক একটি প্রবন্ধ  সেন্ট্রোল জৈন্তা উচ্চ বিদ্যালয়ের ফেইসবুক পেইজসহ ও কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত হয়। উক্ত প্রবন্ধে তৎকালীন সময়ে বিদ্যালয়ের কঠিন সময়ের বর্ননা দিতে দিয়ে গিয়ে স্কুলে ছাত্র হত্যা কান্ডের ঘটনা তুলে ধরা হয়। এ হত্যাকান্ডের বর্ণনা দিতে গিয়ে লেখক মামলার আসামীদের পরিচয় তুলে ধরেন। উক্ত মামলার আসামী সেনগ্রামের মাস্টার শফিকুর রহমান (আদালত কর্তৃক বেকসুর খালাসপ্রাপ্ত) এর পরিচয় তুলে ধরা হয়। এই লেখাকে কেন্দ্র করে সেনগ্রামের মাষ্টার শফিকুর রহমান ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান সুমন একই গ্রামের বাসিন্দা মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর পরিবারকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবং ফোনে হুমকি ধামকি দেন বলে অভিযোগ করেন।

বিষয়টি নিয়ে একপর্যায় গত মঙ্গলবার  (২৩ জুন) সকাল ৯ টায় মোস্তাফিজুর রহমান সুমন ও তার পিতা শফিকুর রহমানের  ইন্ধনে সুহেল আহমদের নেতৃত্বে দেশি অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে বাড়িতে হামলার চেষ্টা করে বলেও অভিযোগ করেন লন্ডন প্রবাসীর পরিবারটি। তবে গেইট তালাবদ্ধ থাকায় প্রাণে রক্ষা পায় পরিবারটি। ঘটনার খবর পেয়ে জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ প্রবাসীর বাড়ি যান। তবে তিনি ঘটনাস্থল থেকে সাংবাদিকদের জানান দুই পরিবারের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে ঝগড়া-বিবাদ হয়েছে। এটা গ্রাম্য শালিসে আপোষ মিমাংসা করে দেয়ার জন্য স্থানীয়দের বলে দেয়া হয়েছে।

উক্ত পরিবারের লন্ডন প্রবাসী  ডাক্তার আবু তাহের মো বাহার আরও জানান, ‘আমার চাচা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা যিনি দেশ রক্ষার জন্য মহান মুক্তিযোদ্ধের সময় সম্মুখ যুদ্ধে সক্রিয় অংশ গ্রহন করেন।মোস্তাফিজুর রহমান সুমন বিভিন্ন সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমার মুক্তিযোদ্ধা চাচার সম্মান হানির চেষ্টা করে যাচ্ছে। তার পিতাকেও হেয় করছে নানা ভাবে।

এদিকে, অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমান সুমন এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে জানান, ‘তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তারা আমাদেরকে হয়রানি করার উদ্দেশ্য এসব বলে বেড়াচ্ছে। হুমকি দিয়েছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমার পিতাকে নিয়ে আজে বাজে মন্তব্য করলে আমি প্রতি উত্তরে গালি দিয়ে থাকতে পারি, তবে প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার মত লোক আমি নই’। তিনি উল্টো অভিযোগ করেন তাহেরের পরিবার তার বাবা ও চাচার নামে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে বেড়াচ্ছে। 

মাস্টার শফিকুর রহমান ফোনে দৈনিক জৈন্তা বার্তাকে জানান, ‘জায়গা জমি নিয়ে আমাদের পরিবারের সাথে তাদের দীর্ঘ দিন থেকে বিরোধ চলে আসছে। এরই জের হিসেবে তারা আমাকে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করতে আদালত থেকে বেকসুর খালাস পাওয়া সত্বেও আমাকে একটি হত্যাকান্ডের আসামী হিসেবে উল্লেখ করে অপপ্রচার চালাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, দিনে দুপুরে ট্রাক দিয়ে বাসার মালামাল নিয়ে শহরের ভাড়া বাসায় পাড়ি দিয়ে এখন প্রাণনাশের ভয়ে বাড়ি ছেড়ে পালানোর কথা প্রচার করচ্ছে।’