মে / ১৬ / ২০২২ ০৮:৪১ অপরাহ্ন

রেজুওয়ান কোরেশী,জগন্নাথপুর প্রতিনিধি

জানুয়ারী / ১৬ / ২০২২
১১:৫৯ অপরাহ্ন

আপডেট : মে / ১৬ / ২০২২
০৮:৪১ অপরাহ্ন

জগন্নাথপুরে ফসলরক্ষা বেড়িবাঁধের কাজে নেই অগ্রগতি

চলে গেল এক মাস



65

Shares

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে হাওরের ফসলরক্ষা বেড়িবাঁধের কোন অগ্রগতি নেই। শনিবার বিভিন্ন বেড়িবাঁধ এলাকায় দেখা গেছে, হাওরগুলো অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে। কোথাও কোন কাজ নেই। ফলে কৃষককুলে দুশ্চিতা বাড়ছে।  গত ১৫ ডিসেম্বর হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের একটি প্রকল্পের কাজ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ধোধন করা হলেও গত এক মাসে হাওরের বেড়িবাঁধ নির্মাণে কোন অগ্রগতি না থাকায় কৃষকরা দুশ্চিন্তায় ভূগছেন। এদিকে প্রকল্প কমিটি গঠন নিয়ে স্থানীয় পাউবোর লুকোচুরি চলছে।

জগন্নাথপুরের সর্ববৃহৎ নলুয়া ও মইয়ার হাওর সরেজমিন পরিদর্শনকালে দেখায়, নলুয়া হাওরের পোল্ডার ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮, ৯, ১০ এবং মইয়ার হাওরের বাঁধ প্রকল্পে কোন কাজ শুরু হয়নি। এসব প্রকল্পের মধ্যে নলুয়া হাওরের ৪ নম্বর উদ্বোধনকৃত প্রকল্পে নামমাত্র সামান্য মাটি পড়ে আছে। এছাড়াও ২৮ প্রকল্পেই কাজে কোন অগ্রগতি নেই বলে স্থানীয় কৃষকরা জানিয়েছন।

কৃষক ও পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, জগন্নাথপুর উপজেলায় এবার ১৫ কিলোমিটার বেড়িবাঁধের জন্য ২৮টি প্রকল্পের মাধ্যমে বাঁধের কাজ শুরুর লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে গত ১৫ ডিসেম্বর নলুয়ার হাওরের ভূরাখালি এলাকায় ৪ নম্বর প্রকল্পের উদ্ধোধন করেন জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাজেদুল ইসলাম।

উপজেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, ২৮ প্রকল্পের জন্য এবার  প্রাথমিকভাবে তিন কোটি ২১ লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। ২৭টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে এক নম্বর প্রকল্পের কমিটি এখনও হয়নি।

এদিকে প্রকল্প বাস্তবায়ন (পিআইসি) কমিটি গঠন নিয়ে পাউবো এককে সময় একেক কথা বলছে। গত ৫ জানুয়ারি বেড়িবাঁধ সংক্রান্ত একসভায় স্থানীয় পাউবোর পক্ষ থেকে জানানো হয়, ১৭টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে অন্যসব প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হবে। গতকাল শনিবার স্থানীয় সাংবাদিকদের জানানো হয়, গত দুই সপ্তাহ পূর্বে ২৭টি প্রকল্প কমিটি গঠন শেষ হয়েছে। এছাড়া সবকটি প্রকল্পের কার্য্যাদেশ (ওয়ার্ক ওয়াডার) হয়েছে। তবে এখনও কোন কোন প্রকল্পের কার্য্যাদেশ পাননি প্রকল্পের দায়িত্বরত লোকজন এমন তথ্য বাঁধের কাজে সংম্পৃক্ত লোকজন জানিয়েছেন।

নলুয়া হাওরের একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি সভাপতি জানান, এখনও বেড়িবাঁধের কার্য্যাদেশ পাইনি। এজন্য কাজ শুরু করতে পারেনি।  নলুয়ার হাওরে উদ্ধোধন হওয়া প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি আহমেদ আলী  বলেন, ১৫ ডিসেম্বর আমার প্রকল্পের কাজ উদ্ধোধন হয়। ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সহ নানা ব্যস্ততায় কাজ শুরু করতে পারিনি। দ্রুত কাজ শুরু করে দুই সপ্তাহের মধ্যে শেষ করব।

নলুয়ার হাওরের ভূরাখালি গ্রামের কৃষক সাইদুর রহমান জানান, হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের এখন পর্যন্ত কোন কাজ শুরু হয়নি। ১৫ ডিসেম্বর একটি প্রকল্পের উদ্ধোধন করা হলে নামমাত্র মাটি কাটার পর থেকে ওই প্রকল্পের কাজ বন্ধ রয়েছে। তিনি বলেন, জেলার বৃহৎ হাওর নলুয়ার হাওরটি আগাম বন্যায় ফসল হানির ঝুঁকিতে থাকে এ অবস্থায় এখন পর্যন্ত বাঁধের কাজ শুরু না হওয়ায় কৃষকরা চিন্তিত।

হাওর বাঁচাও আন্দোলন জগন্নাথপুর উপজেলা কমিটির সদস্য সচিব সাংবাদিক অমিত দেব  বলেন, হাওর ঘুরে এখন পর্যন্ত হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের কাজ শুরুর চিত্র দেখা যায়নি। ফসল রক্ষায় এমন গাফিলতি মেনে নেওয়া যায় না। তিনি দ্রুত কাজ শুরু করে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে দাবি জানান।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জগন্নাথপুর উপজেলার মাঠ কর্মকর্তা ও ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণ সংস্কার তদারক কমিটির সদস্য সচিব হাসান গাজী বলেন, ২৮টি প্রকল্পের মধ্যে ২৭টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বাঁধের কাজে আমাদের কোন গাফিলতি নেই। নানা কারণে এবার হাওরে বাঁধের কাজ শুরু করতে বিলম্ব হচ্ছে। আশা করছি, আগামী সপ্তাহে সবকটি প্রকল্প কমিটি কে প্রথম কিস্তির টাকা দিয়ে জোরে শোরে কাজ শুরু করাতে পারব।

জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণ সংস্কার তদারক কমিটির আহ্বায়ক সাজেদুল ইসলাম বলেন, হাওরে মাটি কাটার খনন যন্ত্র দিয়ে ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ করার উপযোগী পরিবেশ তৈরি না হওয়ায় কাজ শুরুতে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। এখন পুরোদমে কাজ চলবে এবং নির্ধারিত সময় ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে কাজ শেষ  হবে।

রেজুওয়ান কোরেশী,জগন্নাথপুর প্রতিনিধি

জানুয়ারী / ১৬ / ২০২২
১১:৫৯ অপরাহ্ন

আপডেট : মে / ১৬ / ২০২২
০৮:৪১ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জ