অক্টোবর / ২৭ / ২০২১ ০৪:৪৭ অপরাহ্ন

সুমন আহমেদ, জকিগঞ্জ প্রতিনিধি

অক্টোবর / ১৩ / ২০২১
১১:২১ অপরাহ্ন

আপডেট : অক্টোবর / ২৭ / ২০২১
০৪:৪৭ অপরাহ্ন

কুমিল্লার ঘটনার জের: জকিগঞ্জে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রশাসনের ৪টি গাড়ী ভাঙচুর



278

Shares

কুমিল্লার স্পর্শকাতর ও অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার প্রতিবাদে জকিগঞ্জের কালিগঞ্জে বিক্ষুব্ধ জনতা মিছিল করে বুধবার রাত আটটায়। দফায় দফায় মিছিল বের করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় উত্তেজিত জনতা জকিগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জকিগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও জকিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)’র গাড়ী ভাংচুর করেছে। ঘটনাটি বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার কালিগঞ্জ বাজারে ঘটেছে।

জানা যায় বুধবার (১৩ অক্টোবর) সকালে কুমিল্লা শহরের নানুয়া দিঘীর উত্তরপাড়স্থ পূজা মণ্ডপে প্রতিমার পায়ের ওপর পবিত্র কুরআন রেখে অবমাননার একটি ছবি সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়দের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশ পরিস্থিতি শান্ত করতে গেলে তারাও তোপের মুখে পড়ে, বাঁধে সংঘর্ষ। এরপর দুপুরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের মোতায়েন করা হয়। এদিকে, কুমিল্লায় পরিস্থিতি অনেকটা শান্ত থাকলেও এর জের ধরে সিলেটের জকিগঞ্জে পুলিশ ও বিক্ষুব্ধ জনতার মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ভাঙচুর করা হয়েছে ইউএনও, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, ওসি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের গাড়ি।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে উত্তেজিত জনতা। এ ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগ নেতাকর্মী,ও পুলিশসদস্যসহ অন্তত ৩০/৩৫ জন আহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

স্থানীয় ও পুরিশ সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে এর প্রতিবাদে কালিগঞ্জে সন্ধ্যার পরে মাইকিং করা হয় এবং এশার নামাজের পর বিক্ষুব্ধ জনতা মিছিল বের করেন। মিছিল শুরু করেই দায়িত্বরত পুলিশের উপর চড়াও হয় মিছিলকারীরা। এরপর মিছিলটি মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের নিজস্ব গাড়ি রাখা দেখতে পেয়ে এসব গাড়িতে হামলা ওভাঙচুর চালান মিছিলকারীরা।

এসময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমী আক্তার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হোসেন, ওসি আবুল কাসেম ইউনিয়ন পরিষদের ভিতরে অবস্থান করায় হামলাকারীদের কবল থেকে রক্ষা পান।

রাত সাড়ে ১০টায় এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত জানা গেছে, কালিগঞ্জ বাজারে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। অতিরিক্ত র‌্যাব পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রশাসন সর্তক অবস্থানে রয়েছে।

জকিগঞ্জ উপজেলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে ঊগ্র গোষ্ঠী পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা কোনোভাবেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট হতে দেবো না। এ ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রশাসন কাজ করছে।

এ প্রসঙ্গে ঘটনাস্থলে থাকা জকিগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার হাসিবুল বাশার জানিয়েছেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বেশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়া হয়েছে। পরিস্থিতি অনেকটা থমথমে রয়েছে। পুলিশসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতদের সঠিক তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে র‌্যাব ও অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে।

জকিগঞ্জ থানার ওসি আবুল কাসেম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। উপজেলা চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার লক্ষ্যে একটি উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্টী পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। প্রশাসন কাউকে কোন ছাড় দেবে না।

সুমন আহমেদ, জকিগঞ্জ প্রতিনিধি

অক্টোবর / ১৩ / ২০২১
১১:২১ অপরাহ্ন

আপডেট : অক্টোবর / ২৭ / ২০২১
০৪:৪৭ অপরাহ্ন

সিলেট