মে / ১৬ / ২০২২ ০৮:৪৬ অপরাহ্ন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

এপ্রিল / ২৮ / ২০২২
০৭:২২ পূর্বাহ্ন

আপডেট : মে / ১৬ / ২০২২
০৮:৪৬ অপরাহ্ন

লিবিয়ায় আটক ৫২৮ বাংলাদেশিকে নিয়ে বিপাকে দূতাবাস


ফাইল ফটো

36

Shares

ভূমধ্যসাগরের লিবিয়া উপকূল থেকে উদ্ধার হওয়া ৫ শতাধিক বাংলাদেশির মধ্যে এ পর্যন্ত ৪৭২ জনের পরিচয় নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল এস এম শামিম-উজ জামান গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় বলেন, দূতাবাস টিম ৩ দিনে আটককৃতদের মধ্যে প্রায় ৪৭২ জনের ইন্টারভিউ নিয়েছে। এর মধ্যে মোট ৩০৭ জন দেশে ফিরতে সম্মতি দিয়েছেন। এটা নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, তারা সকলে  বাংলাদেশের নাগরিক। যেহেতু তারা অবৈধভাবে গেছেন ফলে তাদের কাছে পাসপোর্ট বা অন্য কোনো বৈধ ডকুমেন্ট পাওয়া যায় নাই, তাই তাদের সকলের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, লিবিয়ার পূর্বঞ্চলীয় জাওয়ারিখ উপকূল থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপ যাত্রাকালে দেশটির কোস্টগার্ড যে ৬ শতাধিক অভিবাসন প্রত্যাশীকে আটক করেছে তার মধ্যে ৫২৮ জন বাংলাদেশি বলে তথ্য পাওয়া গেছে। 

তবে তথ্য যাচাই-বাছাইয়ের প্রাথমিক পর্যায়ে তাদের মুখোমুখি সাক্ষাৎকার গ্রহণ শুরু করা হয়েছে। দূতাবাস টিম ৩ দিনেও সকলের  সাক্ষাৎকার গ্রহণ শেষ করতে পারেনি জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, আশা করি আগামীকাল বৃহস্পতিবারের মধ্যে বাকিদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা সম্ভব হবে। তিনি জানান, সোম ও মঙ্গলবার দু’দিনে ৪০০ জনের সাক্ষাৎকার নেয়া হয়েছিল, তার মধ্যে ২৪৪ জন ফিরতে রাজি। তৃতীয় দিনে অর্থাৎ বুধবার আরও ৭২ জনের সঙ্গে দূতাবাস টিমের কথা হয়েছে। তার মধ্যে আরও ৬৩ জন দেশে ফিরতে রাজি হয়েছেন।

তিনি উল্লেখ করেন, ৩ দিনের সাক্ষাৎকারে যে ৩০৭ জন দেশে ফিরতে সম্মতি দিয়েছেন তাদের পাসপোর্ট-ভিসা না থাকায় (ওয়ানটাইম ইউজের জন্য) ট্রাভেল পারমিট ইস্যু করবে দূতাবাস। সেটি সম্পন্ন হওয়ার পর আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা আইওএম’কে তালিকা দেয়া হবে। আইওএম-এর মাধ্যমে (স্পন্সর) টিকিট সংগ্রহ এবং অন্য প্রস্তুতি শেষ করে মে মাসের তৃতীয় সপ্তাহ নাগাদ আটককৃত ৩০৭ জনকে দেশে ফেরানো সম্ভব হবে বলে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, জোর করে কাউকে দেশে ফেরানোর সুযোগ নেই। যারা স্বেচ্ছায় ফিরতে রাজি কেবল তাদের পাঠানো হবে। বাকিরা হয়তো একটা সময় (দেন-দরবারের পর) ছাড়া পাবেন। তারা হয়তো অবৈধভাবে কাজকর্ম যোগাড় করতে পারবেন, কিন্তু আদতে তাদের বৈধ হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

শুক্রবার থেকে লিবিয়াতে সরকারি ছুটি শুরু হচ্ছে জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, মে মাসের প্রথম সপ্তাহ ছুটির আমেজ থাকবে, ফলে ওই সময়ে কাজ কিছুটা কম হবে। 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

এপ্রিল / ২৮ / ২০২২
০৭:২২ পূর্বাহ্ন

আপডেট : মে / ১৬ / ২০২২
০৮:৪৬ অপরাহ্ন

প্রবাস