অগাস্ট / ১৪ / ২০২২ ০৬:১৫ অপরাহ্ন

শেখ জাহান রনি, মাধবপুর

অগাস্ট / ০৪ / ২০২২
০৫:১০ অপরাহ্ন

আপডেট : অগাস্ট / ১৪ / ২০২২
০৬:১৫ অপরাহ্ন

মাধবপুরে কমলা গোসাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হযবরল অবস্থা



45

Shares

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার কমলা গোসাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হযবরল অবস্থা। শিক্ষার মান খুবই নিন্ম মানের। বিদ্যালয়ের স্লিপের টাকার কোন হিসাব দিতে পারেনি প্রধান শিক্ষক। 

সরজমিন গিয়ে দেখা যায়- দুপুর ১২ টা পর্যন্ত প্রথম শিফটে বিদ্যালয়ে উপস্থিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা  মাত্র ১৪ জন। এই বিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১১৮ জন। শিশু শ্রেণীর ক্লাসে নেই কোন খেলার সামগ্রী। বিদ্যলয়ের শ্রেণীর কক্ষের  টিনের চালা ফুটা হয়ে রয়েছে। এমনকি টিনের চালার টুলি নাই। যার কারনে সামান্য  বৃষ্টি হলে পানিতে সয়লাব হয়ে যায় অফিস কক্ষ সহ শ্রেণীকক্ষ। বিদ্যালয়ের দেয়াল ঘড়ি ২ টি নষ্ট। বঙ্গবন্ধু কর্নার টি রয়েছে শিক্ষকদের অফিস কক্ষে। যার কারনে শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধু কর্নার সবর্দা দেখতে পারেন না। 

বিদ্যালয়ের সামনে দৃশ্যমান স্থানে স্লিপের টাকা কোন কোন খাতে খরচ করা হয়েছে তা লেখা থাকার কথা থাকলেও বাস্তবে কোন স্থানে এই রকম লেখা দেখা যায়নি। 

স্লিপের টাকা কোন কোন খাতে খরচ করা হয়েছে তা জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক রহিচ উদ্দিন জানান, বিদ্যালয়ে খাতা,পত্র চুরি হয়ে যাবে তাই সেগুলো তার বাড়িতে নিয়ে রেখেছেন। সে জন্য তিনি হিসাব দেখাতে পারবেন না। আর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ছিদ্দিকুর রহমান বিষয়টি অবগত আছেন। 

এ ব্যাপারে শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল নাজিম জানান, স্লিপের টাকার যে কাজগুলো করার কথা রয়েছে সেগুলো দ্রুত করার জন্য তাগিদ দেওয়া হয়েছে। 

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ ছিদ্দিকুর রহমান জানান, স্লিপের টাকা কোন কোন খাতে খরচ করা হয়েছে সেগুলো একটি ব্যানারে লিখে বিদ্যালয়ের বাইরে দৃশ্যমান জায়গায় টানিয়ে রাখার নির্দেশ রয়েছে। কোন প্রতিষ্টান নির্দেশনা অমান্য করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

সাংবাদিকরা স্লিপের টাকার হিসাব চাইতে পারে না, এই সংক্রান্ত পরিপত্র রয়েছে। কিন্তু তথ্য অধিকার আইনে তো সব তথ্য জানার অধিকার রয়েছে এমন প্রশ্নে তিনি কোন উত্তর দিতে পারেন নি। 

এ ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ গোলাম মাওলার সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তিনি এখানে নতুন যোগদান করেছেন। বিদ্যালয়ের স্লিপের টাকার হিসাব সাংবাদিকরা চাইতে পারবে না এই রকম কোন পরিপত্র আছে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি জানান- বিষয়টি আমার জানা নেই। 


শেখ জাহান রনি, মাধবপুর

অগাস্ট / ০৪ / ২০২২
০৫:১০ অপরাহ্ন

আপডেট : অগাস্ট / ১৪ / ২০২২
০৬:১৫ অপরাহ্ন

হবিগঞ্জ