জুন / ১৭ / ২০২১ ১১:১৫ পূর্বাহ্ন

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

জুন / ১০ / ২০২১
১১:১৫ অপরাহ্ন

আপডেট : জুন / ১৭ / ২০২১
১১:১৫ পূর্বাহ্ন

মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে গাছে বেঁধে শিশুকে নির্যাতন



33

Shares

রিফাত (৯) নামের এক শিশুকে মুঠোফোন চুরির অপবাদ দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সম্প্রতি ওই শিশুকে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। নির্যাতনের শিকার রিফাতময়মনসিংহের গৌরীপুরে রামগোপালপুর ইউনিয়নের মধুবন আদর্শ গ্রামের (গুচ্ছগ্রাম) সুরুজ মিয়ার ছেলে। সে স্থানীয় রামগোপালপুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র। গত শুক্রবার গৌরীপুরের রামগোপালপুর ইউনিয়নের মধুবন আদর্শ গ্রামে (গুচ্ছগ্রাম) এ ঘটনা ঘটলেও বিষয়টি গোপন থাকে। পরে নির্যাতনের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

রিফাতের বাবা সুরুজ মিয়া বলেন, গত মাসের শেষ সপ্তাহে তাঁর ছেলে হিমেল প্রতিবেশী ফাতেমা বেগমের গাছ থেকে আম পাড়ে। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হিমেলকে প্রতিবেশী ফাতেমা বেগম ও তাঁর ছেলে পিটিয়ে গাছ থেকে নামান। এরপর থেকে রিফাত জ্বরে ভোগে। জ্বর সেরে উঠলে শুক্রবার রিফাতকে তাঁরা বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে মারধর করেন। পরে বিষয়টি জানতে পেরে তাঁদের বাড়িতে গিয়ে রশি খুলে রিফাতকে বাড়িতে নিয়ে আসেন তিনি। এরপর গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে তাঁরা বিচারের আশ্বাস দেন।

এ বিষয়ে মধুবন আদর্শ গ্রামের সভাপতি জামাল আহমেদ বলেন, নির্যাতনের বিষয়টি গত মঙ্গলবার রাতে জানতে পেরেছি। বুধবারে বিষয়টি নিয়ে সবার বসার কথা ছিল। কিন্তু বসা হয়নি।

ফাতেমা বেগম শিশু রিফাতকে নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তবে তাঁর ছেলে হিমেল শিশু রিফাতকে নির্যাতনের কথা স্বীকার করে বলেন, তাঁদের ঘর থেকে মুঠোফোন চুরি করার অপরাধে রিফাতকে ধরে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়েছিল। পরে রিফাতের বাবা এসে উল্টো তাঁকেই (হিমেল) পিটিয়ে ছেলেকে ছাড়িয়ে নিয়ে গেছেন।

এ বিষয়ে গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল হালিম সিদ্দিকী বলেন, এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ দেওয়া হয়নি। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন তিনি।

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

জুন / ১০ / ২০২১
১১:১৫ অপরাহ্ন

আপডেট : জুন / ১৭ / ২০২১
১১:১৫ পূর্বাহ্ন

অপরাধ