জানুয়ারী / ১৮ / ২০২২ ০৪:০১ পূর্বাহ্ন

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

জানুয়ারী / ১৩ / ২০২২
১০:০৪ পূর্বাহ্ন

আপডেট : জানুয়ারী / ১৮ / ২০২২
০৪:০১ পূর্বাহ্ন

ভাড়া না বাড়লে সব আসনে যাত্রী চায় বাস মালিকরা



33

Shares

গণপরিবহণে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে যাত্রী বহনের সরকারি ঘোষণা আজ থেকে কার্যকর হচ্ছে না। শতভাগ সিটে যাত্রী নিয়ে বাস চালানোর দাবি জানিয়েছেন পরিবহণ মালিকরা। এ ক্ষেত্রে বিদ্যমান ভাড়াতেই তারা গাড়ি চালাবে।

কিন্তু অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে তাদের গাড়ি চালাতে বাধ্য করলে যাত্রীদের কাছ থেকে ৬০ ভাগ বেশি ভাড়া আদায় করা হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তারা অতিরিক্ত এ ভাড়া আদায় করবে। বুধবার বিআরটিএ ভবনে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরিবহণ মালিক নেতাদের বৈঠকে এমন আলোচনা হয়। 

আলোচনা শেষে মালিকরা যত আসন তত যাত্রী পরিবহণের দাবি করে শনিবার থেকে বিদ্যমান ভাড়ায় সরকারি নিয়ম অনুযায়ী গাড়ি চালানোর ঘোষণা দেন। তবে তাদের দাবি পূরণ না হলে অর্ধেক আসনে যাত্রী পরিবহণের ক্ষেত্রে তারা আগের গেজেট অনুযায়ী শতকতা ৬০ ভাগ বর্ধিত ভাড়া আদায় করবেন। 

বৈঠক শেষে বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেছেন, আগামী ১৫ জানুয়ারি শনিবার থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসন খালি রেখে যাত্রী নিয়ে গণপরিবহণ চলবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়টি জোরদার করতে সভায় সব ধরনের আলোচনা হয়েছে।

গণপরিবহণের চালক-হেলপারসহ অন্যান্য পরিবহণ কর্মী, যাত্রী সবাইকে শতভাগ মাস্ক পরতে হবে এবং স্যানিটাইজেশনের ব্যবস্থা আগের মতো থাকবে। কেবিনেটের নির্দেশনার প্রেক্ষিতে যেহেতু ভাড়া বৃদ্ধি করা যাবে না, সেহেতু আমাদের বিদ্যমান ভাড়ায় গণপরিবহণ চলবে।

বৈঠকে পরিবহণ মালিকরা বলেন, ৫০ ভাগ সিট খালি রেখে ভাড়া বৃদ্ধি করা হলে যাত্রীদের ভোগান্তি বাড়বে। তাই যত সিট তত যাত্রীর বিষয়টি বিবেচনা করে নির্দেশনা চান তারা।

সরকারি প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিধিনিষেধ কার্যকরের তারিখসহ সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা জারি করবে। আর সব ধরনের যানবাহনের চালক ও সহকারীদের আবশ্যিকভাবে করোনার টিকার সনদ থাকতে হবে।

সরকারি এ সিদ্ধান্ত বাস্তবসম্মত নয় বলে মন্তব্য করেছেন যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী। তিনি বলেন, যেখানে বাণিজ্য মেলায় হাজার হাজার লোকের সমাগম নিয়ন্ত্রণের কোনো উদ্যোগ নেই।

সেখানে গণপরিবহণে আসনের অর্ধেক যাত্রী বহনের নির্দেশনা দেওয়াটা হাস্যকর। সরকারের এই সিদ্ধান্ত বাস্তবসম্মত নয়। এ নিয়ে নৈরাজ্য দেখা দিতে পারে।

এ সিদ্ধান্ত কার্যকর কঠিন হবে। কারণ এমনিতেই যাত্রীর তুলনায় গণপরিবহণের সংকট আছে। তাই যত সিট তত যাত্রী নেওয়ার বিকল্প ব্যবস্থা কার্যকর করলে যাত্রী ভোগান্তি আরও বাড়বে। বাস মালিকরাও এবার কৌশলী ভূমিকা রাখছেন।

জৈন্তা বার্তা ডেস্ক

জানুয়ারী / ১৩ / ২০২২
১০:০৪ পূর্বাহ্ন

আপডেট : জানুয়ারী / ১৮ / ২০২২
০৪:০১ পূর্বাহ্ন

জাতীয়